চতুর্ভুজ কাকে বলে ? চতুর্ভুজ কত প্রকার ও কি কি ?

চতুর্ভুজ কাকে বলে ? চতুর্ভুজ কত প্রকার ও কি কি ?

চতুর্ভুজ কাকে বলে – এই আর্টিকেলের মাধ্যমে আমরা আপনাকে চতুর্ভুজ সম্পর্কিত সকল তথ্য এবং গুরুত্বপূর্ণ সংজ্ঞা আপনাদের কাছে তুলে ধরব। আশা করছি এটি আপনাকে অনেক সাহায্যে করবে।

চতুর্ভুজ কাকে বলে ও কত প্রকার?

চতুর্ভুজ কাকে বলে?

আমরা প্রথমেই জেনে নেয় চতুর্ভুজ কাকে বলে?

চারটি রেখাংশ দ্বারা আবদ্ধ চিত্রকে চতুর্ভুজ বলে।

মনে রাখা ভালো , চতুর্ভুজের চার কোণের পরিমাণ ৩৬০ ডিগ্রি।

চতুর্ভুজ কত প্রকার ও কি কি?

চলুন দেখে নেওয়া যাক, চতুর্ভুজ কত প্রকার ও কি কি?

চতুর্ভুজ চার প্রকার। এগুলো হলোঃ

  • বর্গ
  • রম্বস
  • আয়ত
  • সামান্তরিক

বর্গ কাকে বলে?

যে চতুর্ভুজের চারটি বাহু সমান এবং কোণগুলো সমকোণ তাকে বর্গ বলে।

বর্গের বৈশিষ্ট্য গুলো হলো :
  • বর্গের প্রত্যেকটি বাহু সমান।
  • বর্গের প্রত্যেকটি কোণ হলো সমকোণ।
  • বর্গের কোণদ্বয় পরস্পর সমান।

বর্গ সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ সূত্র –

বর্গের ক্ষেত্রফল= (এক বাহুর দৈর্ঘ্য)² অথবা দৈর্ঘ্য* দৈর্ঘ্য

বর্গক্ষেত্রের পরিসীমা= 4a

বর্গক্ষেত্রের পরিসীমা বলতে আমরা সাধারণত বুঝি বর্গের চারবাহুর সমষ্টি কে।

মনে রাখা ভালো, বর্গের প্রত্যেকটি কোণের পরিমাণ ৯০ ডিগ্রি।

রম্বস কাকে বলে ?

যে চতুর্ভুজের চারটি বাহু সমান কিন্তু কোণগুলো সমকোণ নয় তাকে রম্বস বলে।

রম্বসের বৈশিষ্ট্য গুলো হলো:
  • রম্বসের চারটি বাহু সমান।
  • রম্বসের কোণগুলো সমকোণ নয়।
  • রম্বসের কর্ণদ্বয় পরস্পরকে সমকোনে সমদ্বিখণ্ডিত করে।
  • রম্বসের কর্ণগুলো সমান নয়।
রম্বস সম্পর্কিত কিছু গুরুত্বপূর্ণ সূত্র:

রম্বসের ক্ষেত্রফল =(ভূমি × উচ্চতা) বর্গ একক।

রম্বসের কর্ণদ্বয়ের দৈর্ঘ্য d1 একক ও d2 একক হলে,

রম্বসের ক্ষেত্রফল = 1÷2 *(d1*d2 ) বর্গ একক

আয়ত কাকে বলে?

যে চতুর্ভুজের বিপরীত বাহু গুলো পরস্পর সমান এবং কোণগুলো সমকোণ তাকে আয়ত বলে।

আয়তক্ষেত্রের বৈশিষ্ট্য গুলো হলো:
  • আয়তক্ষেত্রের বিপরীত বাহু গুলো পরস্পর সমান।
  • আয়তক্ষেত্রের কোণগুলো সমকোণ।
  • আয়তক্ষেত্রের কর্ণগুলো পরস্পর সমান।

সামান্তরিক কাকে বলে?

যে চতুর্ভুজের বিপরীত বাহু গুলো পরস্পর সমান কিন্তু কোণগুলো সমকোণ নয় তাকে সামান্তরিক বলে।

সামান্তরিকের বৈশিষ্ট্য গুলো হলো:
  • সামান্তরিকের বিপরীত বাহু দুটি পরস্পর সমান ও সমান্তরাল।
  • সামান্তরিকের বিপরীত কোণ দুইটি সমান।
  • সামান্তরিকের কর্ণদ্বয় অসমান।

আশা করছি আপনাদের এই আর্টিকেল অনেক উপকারে আসবে। নিয়মিত শিক্ষণীয় আর্টিকেল পেতে মনির হোসেন ( Monir Husen ) ওয়েবসাইটে ভিজিট করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *